loading

FOREX BASIC COURSE

পিভট পয়েন্ট সামগ্রিক

  • 5.0 (7 reviews)
  • PUBLISH BY: FxsuccessBD
  • December 24th, 2019 04:45 pm

পিভট পয়েন্ট সামগ্রিক

ফরেক্স চার্টের সম্ভাব্য সাপোর্ট/রেজিস্ট্যান্স পাওয়ার জন্য পিভট পয়েন্ট ব্যবহার করা হয়ে থাকে। মার্কেটে প্রাইস একশন বোঝার জন্য পিভট পয়েন্ট অনেক জনপ্রিয় একটি মাধ্যম। এই পিভট পয়েন্ট ট্রেডারদেরকে সম্ভাব্য মুভমেন্টের ধারনা প্রদান করে থাকে। আপনি কোথায় বাই বা সেল দিবেন, কোন পয়েন্টে গেলে মার্কেট তার গতি পরিবর্তন করতে পারে, এগুলো চিহ্নিত করার জন্য মূলত পিভট পয়েন্ট ব্যপকভাবে ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

মার্কেটে অনেক ধরনের পিভট পয়েন্ট ইন্ডিকেটর আছে এবং অধিকাংশ ফ্রিতে পাওয়া যাবে। পছন্দমত যেকোন একটি ইন্ডিকেটর Install করে নেন। পিভট পয়েন্ট অনেকটা ফিবনাচ্চির মত। অনেক ট্রেডাররা এটা ব্যবহার করে আর সেই লেভেলগুলো অনেকটা স্বপরিপূরক। ফিবনাচ্চি(Fibonacci) এবং পিভট পয়েন্টের(PP) মধ্যে পার্থক্য হল যে পিভট পয়েন্ট চিন্তা নিরপেক্ষ আর ফিবনাচ্চিতে হাই/লো নির্ণয়ে ভিন্নমত থাকে

পিভট পয়েন্ট শর্ট টার্ম ট্রেডারদের জন্য প্রয়োজনীয় ট্যুল। ট্রেডাররা শর্টটার্মের ট্রেডে এটা দিয়ে উপকৃত হতে পারে। 
রেঞ্জবাউন্ড ট্রেডাররা পিভট পয়েন্ট ব্যবহার করে রিভার্সাল চিহ্নিত করতে পারে। ব্রেকআউট ট্রেডাররাও পিভট পয়েন্ট ব্যবহার করে থাকে কারন তারা ব্রেকআউট লেভেল বের করার জন্য এটি ব্যবহার করে থাকে। পিভট পয়েন্টের একটা চার্ট:

পিভট পয়েন্ট গননা:

পিভট পয়েন্ট আপনার ফরেক্স চার্টকে কয়েকটা ভাবে ভাগ করে দিবে যেখানে মাঝের পয়েন্টটিকে বলা হয় পিভট পয়েন্ট (PP)। এখানে উল্লেখ্য যে, ধারনা করা হয়ে থাকে মার্কেটে প্রাইস লেভেল যদি পিভট পয়েন্টের উপরে থাকে তাহলে বুলিশ (Bullish) এবং প্রাইস লেভেল যদি পিভট পয়েন্টের নিচে থাকে তাহলে বিয়ারিশ (Bearish) হয়ে থাকে।

পিভট পয়েন্ট এবং এর সাথের সাপোর্ট/রেজিস্টান্স গননা করা হয় আগের PERIOD এর ওপেন, হাই, লো আর ক্লোজ দিয়ে। অনেক ট্রেডাররা নিউ ইয়র্ক ক্লোজের সময়কে দিনের শেষ হিসেবে নেয়। 



পিভট পয়েন্ট গননা নিম্নে দেখানো হলঃ 

পিভট পয়েন্ট (পিপি) = (হাই + লো + ক্লোজ) / ৩


সাপোর্ট/রেজিস্ট্যান্স লেভেলগুলোর গননা নিন্মে দেখানো হলঃ 

প্রথম লেভেলের সাপোর্ট/রেজিস্ট্যান্স

রেজিস্ট্যান্স ১ (R1) = (২ x পিপি) – লো

সাপোর্ট ১ (S1) = (২ x পিপি) – হাই


২য় লেভেলের সাপোর্ট/রেজিস্ট্যান্স

রেজিস্ট্যান্স (R2) = পিপি + (হাই – লো) 
সাপোর্ট ২ (S2) = পিপি – (হাই – লো)


৩য় লেভেলের সাপোর্ট/রেজিস্ট্যান্স

রেজিস্ট্যান্স ৩ (R3) = হাই + ২ (পিপি – লো)
সাপোর্ট ৩ (S3) = লো – ২ (হাই – পিপি)

 

পিভট পয়েন্ট ক্যালকুলেটর আছে সেটা ব্যাবহার করতে পারেন অথবা এক্সেলে একটা পিভট মডেল বানিয়ে নিতে পারেন। তবে সব থেকে ভাল হয় যদি একটা পিভট পয়েন্ট ইন্ডিকেটর ব্যবহার করেন।

Recent Article
loading
Broker Section